কম্বোডিয়াকে হারাল লাল-সবুজের দল

3090
কম্বোডিয়াকে হারাল লাল-সবুজের দল

র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের (১৯২) চেয়ে কম্বোডিয়া ২০ ধাপ এগিয়ে। মুখোমুখি লড়াইয়ের ফল অবশ্য বাংলাদেশের দিকে। আগের তিন দেখায় বাংলাদেশ জিতেছে দু'বার। তবে হারের স্বাদ পায়নি একবারও। এবার স্বাগতিক হওয়ায় এগিয়ে ছিল তারাই। ওদিকে কৃত্রিম ঘাসে পাঁচ মাস পর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামেন জেমি ডে'র শিষ্যরা। 'ফিফা ফ্রেন্ডলি ইন্টারন্যাশনাল' নামের এই ম্যাচে তাই এগিয়ে ছিল কম্বোডিয়া। কিন্তু শেষ দিকে দারুণ এক গোল দিয়ে জয় তুলে নিল বাংলাদেশ।

নমপেন অলিম্পিক স্টেডিয়ামে শনিবারের ম্যাচে বল দখলের হিসেবে অবশ্য এগিয়ে ছিল কম্বোডিয়ার। কিন্তু গোলের লক্ষ্যে শট নেওয়া। গোলের বাইরে শট। কর্ণার কিক। ছোট-বড় আক্রমণ। গোল পাওয়ার মতো আক্রমণ সব দিক থেকে এগিয়ে ছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। জয় তাই তাদের পাওনাই ছিল। কিন্তু লক্ষ্য ভেদ করতে পারছিল না তারা। শেষ দিকে ম্যাচের ৮২ মিনিটে গোল দিয়ে ১-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জামাল ভূঁইয়ার দল। দলের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন মোহাম্মদ রবিউল হাসান।

বাংলাদেশ ফুটবল দল সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিল গত ১০ অক্টোবর। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে ফিলিস্তিনের কাছে হারে লাল-সবুজের দল। এবার নিজেদের অনুকূলে ফল পেতে বেশ ভালোই খেলেন তারা। এই দলের এগারোজন ফুটবলার অনূর্ধ্ব-২৩ দলের হয়ে খেলতে কাতারে যাবেন। দোহায় ১০ দিনের ট্রেনিং ক্যাম্প শেষে বাহরাইনে এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেবেন তারা। ম্যাচটা হার-জিত ছাড়িয়ে তাই প্রস্তুতির ভালো উপলক্ষ্যে পরিণত হয় বাংলাদেশ দলের কাছে। জয়ের স্বাদ সেই প্রস্তুতি ভালোই হল বাংলাদেশ দলের।

জাতীয় দলের এই স্কোয়াডে রাখা হয়েছে অলিম্পিক দলের গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো, ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশা, বিশ্বনাথ ঘোষ, রহমত মিয়া, সুশান্ত ত্রিপুরা, মিডফিল্ডার বিপলু আহমেদ, মাসুক মিয়া জনি, ফরোয়ার্ড মতিন মিয়া, মাহবুবুর রহমান সুফিল ও ইব্রাহিমকে। এই ১১ ফুটবলারই অনূর্ধ্ব-২৩ দলের প্রাথমিক দলে আছেন। ভাবনায় যেহেতু বহু দূরের পথ, প্রীতি ম্যাচ ছিল পরখেরও। সেই পরীক্ষা লাল-সবুজের দল রাঙালো জয়ে।