পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়তে রাফাল চায় ভারত

3093
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়তে রাফাল চায় ভারত

পাকিস্তানের এফ-১৬র মতো বিমানের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করার জন্য রাফাল যুদ্ধবিমান প্রয়োজন ভারতের। সম্প্রতি পাকিস্তান ওই যুদ্ধবিমান দিয়ে ভারতের সীমারেখা অতিক্রম করে হামলা চালায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার আদালতে ওই প্রসঙ্গ উঠে আসে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ফ্রান্সের এই যুদ্ধবিমান সংস্থার সঙ্গে চুক্তিটিকে ক্লিনচিট দেওয়াকে পুনরায় পর্যালোচনা করে দেখার জন্য যে মামলাটি চলছে, বুধবার সুপ্রিম কোর্টকে তা নিয়ে জানাতে গিয়ে রাফালের কথা বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল বেণুগোপাল রাও।

রীতিমতো তর্ক করে তিনি বলেন, ’রাফাল ছাড়া নিজেদের আমরা বাঁচাব কী করে?’ বেণুগোপাল আরও যোগ করেন, আমাদের মিগ-২১ দারুণ লড়াই করে পাকিস্তানের এফ-১৬ বিমানকে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল ঠিকই। তবু, লড়াই করার জন্য আমাদের রাফালের মতো যুদ্ধবিমান প্রয়োজন।’

ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহে পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনা আক্রমণ করার পরদিনই নিয়ন্ত্রণরেখার আকাশে তীব্র সামরিক রেষারেষি হয় দুই প্রতিবেশি দেশের বায়ুসেনার মধ্যে।

’প্রবল প্রয়োজনের জন্যই রাফাল নিয়ে সন্ধি শুরু হয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে প্রথম ব্যাচটি সরবরাহ করার কথা। এছাড়া, ৫২ জন পাইলটকে ফ্রান্সে পাঠানো হবে ২-৩ মাসের প্রশিক্ষণের জন্যও’, জানান বেণুগোপাল রাও।

রাফাল চুক্তির সঙ্গে জড়িত নথিপত্র নথিপত্র চুরি করা হয়েছে এবং পিটিশনাররা সরকারি গোপন তথ্যসংক্রান্ত আইনটি ভঙ্গ করেছে কয়েকটি শ্রেণিবদ্ধ নথির ওপর নির্ভর করে। বুধবার সুপ্রিম কোর্টকে এসব কথা জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কেন্দ্রীয় সরকারের কৌঁসুলি আদালতে বলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এই নথিপত্রগুলি চুরি করা হয়েছে। চুরিতে সাহায্য করেছে ওই মন্ত্রণালয়ের প্রাক্তন অথবা বর্তমান কর্মচারীরা। এগুলো অত্যন্ত গোপন নথি এবং কোনওভাবেই প্রকাশ্যৈ আনা যেতে পারে না সেগুলিকে।

সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, সরকার এর বিরুদ্ধে কী কী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে, তা জানাক। কেন্দ্র বলেছে, আমরা এখন তদন্ত করে দেখছি কীভাবে এই নথিপত্রগুলি চুরি করা হল।

কেন্দ্রের কৌঁসুলি বলেন, এটি অত্যন্ত গর্হিত অপরাধ। আমরা প্রাথমিকভাবেই তাই এর বিরোধিতা করছি। তার কারণ হল, গোপন নথিকে পিটিশনের সঙ্গে কখনওই জুড়ে দেওয়া যায় না। তাই রিভিউ এবং জুরিদের কাছে পেশ করা পিটিশনটিও বাতিল করা উচিত।