কাশ্মীর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ইউনিসেফ থেকে প্রিয়াংকার অপসারণ দাবি

3090
কাশ্মীর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ইউনিসেফ থেকে প্রিয়াংকার অপসারণ দাবি

কাশ্মীর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচিত হচ্ছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াংকা চোপড়া। ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত থেকে তার অপসারণের দাবিও উঠেছে। এমন দাবি করেছেন খোদ পাকিস্তানের এক মন্ত্রী। তার আহ্বান, ইউনিসেফ যেন প্রিয়াংকার শুভেচ্ছাদূত পদ কেড়ে নেয়।

ইউনিসেফের প্রতি পাকিস্তানের মানবাধিকারবিষয়ক মন্ত্রী শিরিন মাজারির অনুরোধ, প্রিয়াংকা চোপড়ার শুভেচ্ছাদূতের পদ যেন প্রত্যাহার করে নেয়। ইউনিসেফ যেন ভবিষ্যতে এ ধরনের সম্মানজনক পদে কাউকে নিয়োগের ক্ষেত্রে অধিক সতর্কতা অবলম্বন করে সেই আহ্বানও জানান শিরিন মাজারি।

এই আহ্বানের পক্ষে যুক্তিও তুলে ধরেছেন পাকিস্তানের এ মন্ত্রী। তিনি টুইটারে লেখেন- ’ভারতীয় সেনাবাহিনী ও দুর্বৃত্ত মোদি সরকারকে সমর্থন করায় ইউনিসেফের উচিত প্রিয়াংকা চোপড়াকে প্রত্যাহার করা নেয়া। অন্যথায় এটি এ পদকে উপহাসের বিষয় করে তুলবে।’

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রিয়াংকা চোপড়া চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে বালাকোট বিমান ধর্মঘটকে সমর্থন করে টুইট করেন। সেখানে তিনি ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য শুভকামনাও জানান। তখনও প্রিয়াংকার বরখাস্ত দাবি করেছিলেন পাকিস্তানের এ নারী মন্ত্রী।

সম্প্রতি বালাকোটে হামলা নিয়ে পাকিস্তানের এক নারীর আক্রমণাত্মক প্রশ্নের সম্মুখীন হন অভিনেত্রী প্রিয়াংকা চোপড়া। পাকিস্তানি ওই নারী প্রিয়াংকার কাছে জানতে চান, জাতিসংঘের শান্তিদূত হয়েও তিনি কেন তার দেশে পরমাণু বোমা আক্রমণের মতো চিন্তাকে সমর্থন করছেন। পাকিস্তানে প্রিয়াংকার লাখ লাখ সমর্থক রয়েছেন, এ কথাও মনে করিয়ে দিতে ভোলেননি সেই নারী।

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলা ৪৪ ভারতীয় সেনা নিহতের ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সমালোচিত হন প্রিয়াংকা। তিনি টুইটে লেখেন, পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার ঘটনায় আমি মর্মাহত। ঘৃণা কখনও জবাব হতে পারে না। আমি নিহত সেনাদের পরিবারের পাশে রয়েছি। আহতদের দ্রুত সেরে ওঠার কামনা করছি।

আর তার এ টুইটের পরেই ট্রোল টুইটে আক্রান্ত হতে থাকেন প্রিয়াংকা।

প্রিয়াংকার এমন বক্তব্যের অর্থ সম্পূর্ণ ভিন্নভাবে উপস্থাপন করেন অক্ষয় ভরদ্বাজ নামের ভারতীয়।

রিটুইটে তিনি লেখেন, হ্যাঁ, ঠিকই বলেছেন- ঘৃণা কখনও জবাব হতে পারে না, যতক্ষণ না আমরা পাকিস্তানকে মানচিত্র থেকে মুছে দিচ্ছি।

প্রিয়াংকাকে ভীতু প্রকৃতির জানিয়ে কটাক্ষ করে এক ব্যক্তি লেখেন, আপনার চিন্তাভাবনা অত্যন্ত ভীতু প্রকৃতির। আপনি আপনার জগৎ নিয়েই মেতে থাকুন।