প্রশ্নপত্র ফাঁসের চেষ্টা করলে সর্বোচ্চ শাস্তি: শিক্ষামন্ত্রী

3090
প্রশ্নপত্র ফাঁসের চেষ্টা করলে সর্বোচ্চ শাস্তি: শিক্ষামন্ত্রী

আগামী ১ এপ্রিল শুরু হতে যাওয়া উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে সরকার সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। কেউ প্রশ্নপত্র ফাঁসের চেষ্টা করলে তাঁর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

আজ শনিবার বিকেলে শেরপুরের নকলায় চন্দ্রকোনা রাজলক্ষ্মী উচ্চবিদ্যালয়ের দুই দিনব্যাপী শতবর্ষ পূর্তি ও পুনর্মিলনী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। প্রশ্নপত্র ফাঁস, নকলসহ সব ধরনের অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রতি আহ্বানও জানান তিনি।

দীপু মনি আরও বলেন, ’আমাদের অর্থনীতি তিনটি স্তম্ভের ওপর দাঁড়িয়ে আছে। এগুলো হচ্ছে কৃষি, তৈরি পোশাক ও প্রবাসীদের আয়। জনসংখ্যাধিক্য এ দেশে বিপুলসংখ্যক তরুণ রয়েছে। এদেরকে মানবসম্পদে পরিণত করতে হবে। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান শিক্ষাবান্ধব সরকার কারিগরি ও প্রযুক্তিগত শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দিয়েছে। দেশে এখন অনেকগুলো বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। আরও কয়েকটি স্থাপনের প্রক্রিয়া চলছে। এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে তরুণেরা প্রযুক্তিগত শিক্ষায় শিক্ষিত হবে। তারা দেশে-বিদেশে কাজ করবে। সেই সঙ্গে আমাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’

সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, ’প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ দেশের নিরক্ষর মানুষের মধ্যে আলোকবর্তিকা ছড়িয়েছেন। প্রতিটি শিশু যাতে বিদ্যালয়ে যায় এবং বছরের প্রথম দিন বই পায়, তা নিশ্চিত করেছেন। এ দেশকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধিশালী করার ও দুর্নীতিমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য তিনি (শেখ হাসিনা) এখন লড়াই করছেন। এই দেশের প্রতি তাঁর (হাসিনা) ভালোবাসা অকৃত্রিম। প্রধানমন্ত্রী মনে করেন জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস। তাই এ দেশের মানুষকে শিক্ষা ও জ্ঞানের আলোয় উদ্ভাসিত করার জন্য তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করছেন।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য মোফাখখার ইসলাম, চন্দ্রকোনা কলেজের অধ্যক্ষ ড. মো. রফিকুল ইসলামসহ আরও অনেকে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান তাসলিমা বেগম, ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. গাজী হাসান কামাল, শেরপুরের জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন, নকলা উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম মাহবুবুল আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।