স্বাধীন প্রসিকিউশন সার্ভিস কমিশন গঠন চেয়ে রিট

3090
স্বাধীন প্রসিকিউশন সার্ভিস কমিশন গঠন চেয়ে রিট

রাজনৈতিক বিবেচনা মুক্ত প্রক্রিয়ায় দক্ষ আইন কর্মকর্তা নিয়োগ নিশ্চিতে একটি স্বাধীন প্রসিকিউশন সার্ভিস কমিশন গঠনের নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন হয়েছে। গত জুলাই মাসে নিয়োগ দেওয়া ডেপুটি অ্যার্টনি জেনারেল ও সহকারী অ্যার্টনি জেনারেলসহ ১৭৫ জন আইন কর্মকর্তার নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে আজ রোববার রিটটি করা হয়।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে চলতি সপ্তাহে রিটের ওপর শুনানি হতে পারে।


চলতি বছরের ৭ জুলাই ১০৫ জন আইনজীবীকে সহকারী অ্যার্টনি জেনারেল (এএজি) এবং ২১ জুলাই ৭০ জন আইনজীবীকে ডেপুটি অ্যার্টনি জেনারেল (ডিএজি) হিসেবে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এই প্রজ্ঞাপন দুটি যুক্ত করে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূইয়া আবেদনকারী হয়ে ওই রিটটি করেন।

পরে ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশ ল’ অফিসার্স অর্ডার-১৯৭২ এর ৩ (৩) নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী এএজি নিয়োগ পেতে হলে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বছর আইন পেশা পরিচালনার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। ওই নিয়োগে অনেকের ক্ষেত্রে ওই শর্ত মানা হয়নি। ডিএজি নিয়োগের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক বিবেচনা প্রাধান্য পেয়েছে, যা সংবিধানের ১৯ ও ২২, ২৭, ২৮, ২৯ ও ৩১ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়—এ সব যুক্তিতে রিটটি করা হয়। নিয়োগপ্রাপ্তদের আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্তির তারিখের সত্যতা যাচাইয়ের নির্দেশনাও চাওয়া হয়েছে রিটে।

রিটে আইন সচিব, আইন কমিশনের চেয়ারম্যান, মন্ত্রী পরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মূখ্য সচিব, সংসদ সচিবালয়ের সচিব, অর্থ সচিব, জনপ্রশাসন সচিব, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ও অ্যাটর্নি জেনারেলসহ ১৫ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।