১৭ দিনে জীবন বদলে দেবেন মিজবাহ

3090
১৭ দিনে জীবন বদলে দেবেন মিজবাহ

পাকিস্তানের অধিনায়ক হিসেবে দলকে সাফল্য এনে দিয়েছেন মিজবাহ উল হক। ২০১৭ সালে ৪৩ বছর বয়সে পাকিস্তানের হয়ে শেষ টেস্ট খেলেছেন তিনি। যতদিন খেলেছেন পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন। চল্লিশ বছরের পরে ফিট থেকে ক্রিকেট খেলা যে কারো জন্য কঠিন। কিন্তু মিজবাহ সেটা পেরেছেন। তিনি তাই জানেন কিভাবে ফিটনেস ধরে রাখতে হয়।

পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সঙ্গে তাই ফিটনেস নিয়ে কাজ করবেন তিনি। বৃহস্পতিবার লাহোরে মিজবাহর অধীনে পাকিস্তান ক্রিকেটারদের ১৭ দিনের অনুশীলন ক্যাম্প শুরু হয়েছে। এই ১৭ দিনে ক্রিকেটারদের জীবনধারা পাল্টে দেবেন বলে উল্লেখ করেছেন সাবেক এই অধিনায়ক।

মিকি আর্থারকে কোচের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরে পাকিস্তানের ভারপ্রাপ্ত কোচের দায়িত্ব পালন করছেন মিজবাহ উল হক। ক্যাম্প শুরুর আগে ক্রিকেটারদের খাদ্যভ্যাস পরিবর্তন, রুটিন মাফিক জীবন কাটানোর অনুশীলনও শেখাবেন বলে জানান তিনি, ’আমার লক্ষ্য ক্রিকেটারদের জীবনধারা নিয়মের মধ্যে নিয়ে আসা। যাতে ভবিষ্যতে তাদের ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন না ওঠে।’

তিনি বলেন, ’এই ক্যাম্প কেবল ক্রিকেটারদের শারীরিক ফিটনেসের অনুশীলন নয়। তার সঙ্গে সময় মতো ঘুমানোর অভ্যাস। ডায়েট করার অভ্যাস। দৈনিক কতটা ক্যালরি নিতে হবে, শরীরের ওজন, কতটা চর্বিজাতীয় খাবার খাওয়া উচিত এগুলোও নিয়মের মধ্যে আনা হবে। খেলোয়াড় হিসেবে তাদের ফিটনেস আদর্শ জায়গায় আনার দিকে আমার নজর থাকবে।’

একজন ক্রীড়াবিদ শৃঙ্খলার সঙ্গে আপস করতে পারেন না বলে জানান তিনি। সামনের দিনগুলোতে তাই এটা নিয়ে কাজ করবেন তিনি। আর শৃঙ্খলার অভ্যাস না থাকলে ফিটনেস ধরে রাখা কঠিন বলেও উল্লেখ করেন মিজবাহ। তবে সম্প্রতি পাকিস্তান এক্ষেত্রে উন্নতি করেছে সেটাও বলে রাখেন এই কোচ। বাবার আযম, ফখর জামান, ইমাম উল হকরা ভালো ফিল্ডিং করেন। মেজবাহর লক্ষ্য সেটা আন্তর্জাতিক মানের করা।

কঠোরভাবে মেজবাহ কাজ করায় তিনি পাকিস্তান ক্রিকেট দলের স্থায়ী কোচ হচ্ছেন বলে মনে করছেন অনেকে। তবে সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি কোচ হওয়ার দৌড়ে নেয়। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের কোচ হতে আবেদনও করেননি। আবেদন করবেন কি-না তা এখনই বলতে পারছেন বলে জানান মিজবাহ।